1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. rj.nazmul2500@gmail.com : Nazmul Hossain : Nazmul Hossain
বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন
জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৬০দিন
:
০৮ঘণ্টা
:
৩৫মিনিট
:
০২সেকেন্ড

ঢাকা দক্ষিণের নগরপিতা তাপস, উত্তরে আতিক

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৩০ বার

বিপুল ভোটে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আতিকুল ইসলাম ও ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

অপরদিকে তাঁদের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেন বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন।

এ সিটি করপোরেশনের এক হাজার ১৫০টি কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে তাপস পেয়েছেন ৪ লাখ ২৪ হাজার ৫৯৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন পেয়েছেন ২ লাখ ৩৬ হাজার ৫১২ ভোট।

অপরদিকে ডিএনসিসি নির্বাচনে মোট এক হাজার ৩১৮টি কেন্দ্রের সবকটির ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী নৌকা প্রতীকের আতিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৪ লাখ ৪৭ হাজার ২১১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী তাবিথ আউয়াল পেয়েছেন ২ লাখ ৬৪ হাজার ১৬১ ভোট। রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম বেসরকারিভাবে আতিকুল ইসলামকে বিজয়ী ঘোষণা করেন।

বেসরকারিভাবে এসব ফলাফল ও বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের যুগ্ম-সচিব ও ডিএসসিসির রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আব্দুল বাতেন।

প্রথম দিকে ঘোষিত কিছু কেন্দ্রের ফলাফলে তাপস ও ইশরাকের মধ্যে ব্যবধান বেশি না থাকলেও সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে তা দ্বিগুণ হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে ১ লাখ ৮৮ হাজার ৮৩ ভোট বেশি পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন তাপস।

ফলাফল ঘোষণায় তাপসের জয়ের সুবাতাস ছড়াতেই শিল্পকলা একাডেমিতে জড়ো হন আওয়ামী লীগের সমর্থকরা। ফল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে থাকেন ফুল হাতে আসা তাপসের সমর্থকরা।

তাপস-ইশরাক ছাড়াও এ সিটিতে মেয়র পদে নির্বাচন করেছেন জাতীয় পার্টি সমর্থিত হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আব্দুর রহমান, এনপিপির বাহারানে সুলতান বাহার, গণফ্রন্টের আব্দুস সামাদ সুজন ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের আকতারুজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লাহ।

তাদের মধ্যে সব কেন্দ্র মিলিয়ে আব্দুর রহমান (হাতপাখা) পেয়েছেন ২২ হাজার ৫৭৬ ভোট, আব্দুস সামাদ সুজন (মাছ) ১০ হাজার ৮৭৬, সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন (লাঙ্গল) চার হাজার ৭৭২, বাহারানে সুলতান বাহার (আম) দুই হাজার ৭০০ ও আক্তারুজামান ওরফে আয়াতুল্লাহ (ডাব) পেয়েছেন দুই হাজার ৬০ ভোট।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। ইভিএম জটিলতাসহ বিভিন্ন অভিযোগের মধ্য দিয়ে ভোট চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ভোট শেষে দক্ষিণের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে একে একে ভোটের ফলাফল ও সরঞ্জামাদি নিয়ে এখানে আসতে থাকেন বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসাররা।

ভোটগ্রহণ শুরু হলে সকাল ৮টায় ধানমন্ডি কামরুন্নেসা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন শেখ ফজলে নূর তাপস। সকাল ৯টায় গোপীবাগ আর কে মিশন রোডের শহীদ শাহজাহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন ইশরাক হোসেন।

ডিএসসিসিতে মোট ভোটার ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১২ লাখ ৯৩ হাজার ৪৪১ এবং নারী ১১ লাখ ৫৯ হাজার ৭৫৩। ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা এক হাজার ১৫০। সাধারণ ওয়ার্ড ৭৫ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ২৫টি। নগরপিতা হিসেবে আতিকুল ইসলামের ওপরই ফের ভরসা রেখেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) জনগণ।

এর আগে শনিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। ইভিএম জটিলতাসহ বিভিন্ন অভিযোগের মধ্য দিয়ে ভোট চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ভোট শেষে উত্তরের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে একে একে ভোটের ফলাফল ও সরঞ্জামাদি নিয়ে এখানে আসতে থাকেন বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসাররা।

ভোটগ্রহণ শুরু হলে উত্তরার নওয়াব হাবিবুল্লাহ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে সকাল সোয়া ৮টার দিকে ভোট দেন আতিকুল। তার আগে ৮টায় গুলশানের মানারাত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেন তাবিথ আউয়াল।

ডিএনসিসিতে মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৫ লাখ ৪৯ হাজার ৫৬৭ এবং নারী ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০৬ জন। এই সিটিতে মোট ভোটকেন্দ্র এক হাজার ৩১৮টি। সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি।

আতিকুল-তাবিথ ছাড়াও এই সিটিতে মেয়র পদে নির্বাচন করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি সমর্থিত প্রার্থী আহাম্মদ সাজেদুল হক রুবেল, ইসলামী আন্দোলনের শেখ ফজলে বারী মাসউদ, এনপিপির আনিসুর রহমান দেওয়ান ও পিডিপির শাহীন খান।

এ জাতীয় আরো সংবাদ