1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. rj.nazmul2500@gmail.com : Nazmul Hossain : Nazmul Hossain
সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ০৭:২৯ অপরাহ্ন

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ ও ব্লাড সুগার টেস্টের ব্যবহার

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০
  • ৫০ বার

মানুষ যত আধুনিক হচ্ছে সেই সাথে তাল মিলিয়ে মানুষের শরীরের রোগ বলাইও আধুনিক হচ্ছে মানে সহজ কথায় মানুষের শরীরে কঠিন কঠিন রোগ বাসা বাধছে । তেমনি একটি রোগ হলো শরীরে অতিরিক্ত ব্লাড সুগার বা ডায়াবেটিস। এই রোগটি বর্তমান বিশ্বের বিশাল একটি সমস্যায় পরিণত হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশ গুলোর মত আমাদের দেশে বা আমাদের পাশ্ববর্তী দেশগুলোতেও বেশ কড়া করেই এই রোগ ছড়িয়ে পরেছে। তবে সবচেয়ে বড় সমস্যার কারণ হলো বিশ্বের অন্যান্য উন্নত দেশগুলোর মত আমাদের দেশের মানুষজন ডায়াবেটিস বা ব্লাড সুগার নিয়ে অতটা সচেতন নয় যার ফলে প্রায় প্রতিটি ঘরে ঘরেই এই রোগটি ছড়িয়ে পরছে।

ডায়াবেটিস হওয়ার কারণ
সাধারণত আমাদের এই আধুনিক লাইফ স্টাইলই ডায়াবেটিস হওয়ার জন্য যথেষ্ট। তার সাথে রয়েছে খাবার দাবার, টেনশন, স্ট্রেস, বাড়তি চাপ ইত্যাদি। আমরা যত আধুনিক হচ্ছি আমাদের লাইফস্টাইলে তত বেশি ফাস্টফুড, একাকিত্ত, অতিরিক্ত টেনশন, অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন ইত্যাদি জড়িয়ে পরছে যেগুলোই মূলত ডায়াবেটিস এ প্রধান প্রধান কারণ।
ডায়াবেটিস থেকে বাচতে কি করনীয়
সবার প্রথমেই খাদ্য তালিকায় আনতে হবে পরিবর্তন। খাদ্য তালিকায় অবশ্যই রাখতে হবে সবুজ শাক-সবজি, দেশীয় ফল মূল ইত্যাদি। যতটুকু পারা যায় ফাস্টাফুড থেকে দুরে থাকা। মাদক জাতীয় দ্রব্য সম্পূর্ণ বাদ দিতে হবে। এবং প্রতিদিন কম করে হলেও ৪০ মিনিট থেকে ১ঘন্টা হাটা অথবা বিভিন্ন রকম ফ্রি হ্যন্ড ব্যায়াম করা। মিস্টি জাতীয় খাবার কম খাওয়া। তবে এক্কেবারেই ছেড়ে দেওয়া উচিত নয় এতে উপকারের চেয়ে অপকার হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি থাকে। নিয়মিত ব্লাডসুগার টেস্ট করা প্রতিটি মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ । কারণ এটি এমন একটি রোগ যেটির তেমন কোন নির্দিষ্ট লক্ষণ নেই বললেই চলে । তাই আমরা অনেকে বুজতেই পারি না যে কার ব্লাড সুগারের অবস্থা কেমন। এবং যাদের অলরেডি ডায়াবেটিস রয়েছে তাদের ব্লাডসুগার নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য অবশ্যই নিয়মিত ব্লাডসুগার টেস্ট করা দরকার।
তবে অনেকেই ডাক্টারের কাছে গিয়ে ব্লাডসুগার টেস্ট করাকে জামেলার কাজ মনে করে যার ফলে অনেকের অলসতা করে বা কাজের চাপে ব্লাডসুগার টেস্ট করানো হয় না। তবে যারা যারা ডাক্টারের কাছে গিয়ে ব্লাডসুগার টেস্ট করানোকে জামেলা মনে করেন তাদের ব্লাডসুগার টেস্ট করানোর জন্য এখন আর ডাক্টারের কাছে বা কোন ফামের্সীতে যেতে হবে না। কারণ আপনি যদি আপনার বাসায় একটি ব্লাডসুগার টেস্টার কিনে নেন তাহলে কিন্তু আর আপনাকে এই জামেলা পোহাতে হবে না। আর এখন ব্লাডসুগার টেস্টার বাজারে অহরহ । এবং একটি ব্লাডসুগার টেস্টারের দাম খুবই সীমিত, ৮০০ থেকে ১,৫০০ টাকার মধ্যে। যাচাই করে যে কেউই কিনতে পারবেন। তবে কেনার আগে অবশ্যই দাম যাচাই করে তার পর কিনবেন। ঘরে বসেই দাম তুলনা করে নিতে পারেন, যেমন: দাম তুলনা করার ওয়েবসাইট বিডিস্টল.কম থেকে ব্লাডসুগার টেস্টারের বর্তমান দাম জেনে নিতে পারবেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ