1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. rj.nazmul2500@gmail.com : Nazmul Hossain : Nazmul Hossain
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন

আগাম ভোট দিয়েছেন ৫ কোটি নাগরিক

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৩ বার

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আগাম ভোট দিয়েছে ৫ কোটিরও বেশি নাগরিক। গত এক শতাব্দীর ইতিহাসে এবারেই সবচেয়ে বেশি আগাম ভোট দিয়েছে মার্কিনিরা। এ পর্যন্ত ব্যালটে সিল মেরেছেন প্রায় ৫ কোটি ৭৪ লাখের বেশি ভোটার। এদিকে করোনাভাইরাসের মধ্যেও নির্বাচনি প্রচারণা আরও জোরদার করেছেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী জো বাইডেন। তৃতীয় ও চূড়ান্ত টিভি বিতর্কের একদিন পরই গত শুক্রবার ছয় ‘ব্যাটল গ্রাউন্ড’ রাজ্যের অন্যতম ফ্লোরিডায় চতুর্থবারের মতো প্রচারণা চালান ট্রাম্প। বসে নেই বাইডেনও। বিতর্কের পরের দিন নিজ রাজ্য ডেলাওয়ারে প্রচারণায় যোগ দেন তিনি। শনিবার ট্রাম্প ব্যাটেল গ্রাউন্ড রাজ্য ফ্লোরিডার ওয়েস্ট পাম বিচ কেন্দ্রে নিজের ভোট দেন। বাইডেন ভোট দেবেন আরেক গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য পেনসিলভানিয়ায়। ফ্লোরিডা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও মার্কিন নির্বাচনের প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা মাইকেল ম্যাকডোনাল্ড বলেন, প্রায় ২১ শতাংশ ভোটার তাদের ভোট প্রয়োগ করেছেন, যা ১৯০৮ সালের পর সর্বোচ্চ। টেক্সাসের ৭০ শতাংশ মানুষ এরই মধ্যে ভোট দিয়ে দিয়েছেন। ফ্লোরিডাতে ভোট দিয়েছেন ৪০ লাখ মানুষ। ভার্জিনিয়া, ওহাইও এবং জর্জিয়াতে ১০ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিতে দেখা গেছে। আগাম ভোট দাখিলে রেকর্ড করেছে উইসকনসিন। রাজ্যটিতে ১১ লাখ ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন। ২০১৬ সালের নির্বাচনে ১৩ কোটি ৭০ লাখ মার্কিনি ভোট দিয়েছেন। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এবারের নির্বাচনে মোট ভোট ১৫ কোটি ছাড়িয়ে যাবে। নির্বাচনের সর্বশেষ সমীক্ষা বলছে, বাইডেন জনপ্রিয়তায় ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। তবে ব্যাটল গ্রাউন্ড রাজ্যগুলোতে দুজনের অবস্থানই কাছাকাছি, যা কি না দুই প্রার্থীর হোয়াইট হাউজের ভাগ্য নির্ধারণ করবে। আগাম ভোট দিলেন ট্রাম্প : আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। স্থানীয় সময় গত শনিবার সকালে ফ্লোরিডার ওয়েস্ট পাম বিচ এলাকায় আগাম ভোট দেন তিনি। পরে নিজেই প্রকাশ্যে জানিয়ে দেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প নামের একজনকে ভোট দিয়েছি।’ এদিকে ৩ নভেম্বর ভোটের দিন ভোট দেবেন ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। সিএনএনের খবরে এসব জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে, ট্রাম্পের সঙ্গে চূড়ান্ত বিতর্ক শেষে জোরেশোরে প্রচারণা শুরু করেছেন ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেন। জয়লাভ করলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক এবং করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন সবাইকে বিনামূল্যে দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি। গত শনিবার বাইডেন ও তার স্ত্রী জিল বাইডেন পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে দুটি ইভেন্টে প্রচারণায় অংশ নেন।

এদিন ট্রাম্পও ভোট দেওয়ার পর তিনটি সুইং স্টেটে নির্বাচনি প্রচারণা চালান। নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা হিসেবে ২০১৬ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। গত বছর তিনি তার আবাসনের রাজ্য আনুষ্ঠানিকভাবে বদলে ফেলেন। নিজের স্থায়ী ঠিকানা ও ভোটার রেজিস্ট্রেশন ফ্লোরিডায় স্থানান্তর করেন তিনি। এর উদ্দেশ্য ছিল ওই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যটিতে জয় পাওয়া। এবারের নির্বাচনে ফ্লোরিডা অন্যতম ব্যাটলগ্রাউন্ড বা সুইং স্টেট হিসেবে পরিচিত। সেখানেই শনিবার আগাম ভোট দিলেন তিনি। এখানে ট্রাম্পকে জয় পেতেই হবে। ফ্লোরিডার প্রায় ৫৩ লাখ ভোটার নিজেদের আগাম ভোট দিয়েছেন বলে জানা গেছে। ভোট দেওয়ার পর ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় প্রচারে অংশ নেন ট্রাম্প। এখানে ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনের পক্ষে প্রচার চালিয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ৩ নভেম্বর হলেও মাসখানেক আগে থেকে আগাম ভোট শুরু হয়। ভোট পাঠানো যায় ডাকযোগেও। করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে ভোটের দিনের ভিড় এড়াতে অনেকেই এই সুযোগ নিচ্ছেন। এ কারণে স্বাভাবিকভাবেই দেশটির নির্বাচনি ইতিহাসে এবার সবচেয়ে বেশি আগাম ভোট জমা পড়েছে।

ট্রাম্পের এ আগাম ভোট দেওয়াকে স্ববিরোধিতা বলছেন বিশ্লেষকরা। কারণ, নির্বাচনি প্রচারে একাধিকবার আগাম ভোটের বিরুদ্ধে বলেছেন তিনি। তার আশঙ্কা, এতে ভোট কারচুপির আশঙ্কা বেড়ে যায়।

করোনা মোকাবিলা নিয়ে ট্রাম্পের সমালোচনায় বাইডেন, ওবামা : যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। এ অবস্থায় দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী জো বাইডেন করোনাভাইরাস মোকাবিলা নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করেছেন। আর ট্রাম্প জোর নির্বাচনি প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। বাইডেনের সঙ্গে ব্যবধান কমিয়ে আনার লক্ষ্যে গত শনিবার একদিনে তিনি নর্থ ক্যারোলিনা, ওহিয়ো ও উইসকনসিনে নির্বাচনি সমাবেশ করেছেন।

তবে তার এ তৎপরতা হোঁচট খাচ্ছে নির্দয় বাস্তবতার কাছে। গত শনিবার দ্বিতীয় দিনের মতো যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড সংখ্যক লোক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ সংখ্যা ৮৯ হাজার। শীত মৌসুমে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

দেশটিতে এরই মধ্যে করোনায় মারা গেছেন ২ লাখ ২৪ হাজারেরও বেশি লোক। এ বাস্তবতায় অধিকাংশ ভোটার মনে করছেন, ট্রাম্প দক্ষতার সঙ্গে করোনা মোকাবিলা করতে পারেননি।

এদিকে পেনসেলভিনিয়ায় ড্রাইভ ইন র‌্যালি করেছেন বাইডেন। এ সমাবেশে তিনি ট্রাম্পের উদ্দেশে বলেন, তিনি বলে যাচ্ছেন করোনা চলে যাচ্ছে। করোনার সঙ্গে কীভাবে বসবাস করতে হয় তা আমরা শিখছি।

কিন্তু বাইডেন বলেন, এর সঙ্গে কীভাবে বসবাস করতে হয় তা আমরা শিখছি না। আপনি আমাদের বলছেন কীভাবে এর সঙ্গে মরতে হয় তা শিখতে। আর এটি ভুল।

সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ফ্লোরিডার মিয়ামিতে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্যকালে ট্রাম্প প্রশাসনের করোনা মোকাবিলার সমালোচনা করেন।

করোনায় আক্রান্ত ট্রাম্পের হাসপাতালে যাওয়া প্রসঙ্গে ওবামা বলেন, ট্রাম্প হঠাৎ করেই আমাদের সবাইকে রক্ষা করতে যাচ্ছেন না। এমনকি তিনি নিজেকে রক্ষায়ও প্রাথমিক কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেননি।

ওবামা শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের নিন্দা জানাতে ট্রাম্পের ব্যর্থতা, প্রকাশ্যে মিথ্যা বলাসহ নানা বিষয়ে প্রেসিডেন্টের ব্যর্থতাকে তুলে ধরে সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে ভোট দিতে সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানান।

এদিকে ট্রাম্প নর্থ ক্যারোলিনায় তপ্ত রোদে দাঁড়িয়ে সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, তারা চাচ্ছে আপনাদের হতাশ করে দিতে। ৪ বছর আগের চেয়ে এবারের জনমত জরিপের ফল অনেক ভালো।

তিনি আরও বলেন, এবারের নির্বাচন হলো ট্রাম্পের ‘সুপার রিকভারি’ বনাম ‘বাইডেন ডিপ্রেশন’ এর মধ্যে যে কোনো একটিকে বেছে নেওয়া।

ট্রাম্প আরও বলেন, তারা বলছে, আমি খুবই আশাবাদী। এটি সত্য, কারণ আমি দেশকে ভালোবাসি। তাই আমরা আশাবাদী। আগামীতে আমাদের দেশ আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে ভালো থাকবে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ