1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
নতুন লুকে ভাইজান বিএনপির দুটি গুণ, ভোট চুরি ও মানুষ খুন : প্রধানমন্ত্রী কোলা ইউনিয়ন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক হলেন সিরাজদিখানের তুষার সিরাজদিখানে জমির আগাছা পরিস্কারে ব্যস্ত কৃষক! সিরাজদিখানের বালুচরে বেদখল হওয়া সরকারী রাস্তা উদ্ধার! ফুটবল বিশ্বকাপ মঞ্চে লাল সবুজের পতাকা হাতে বাঙালী যুবক! সিরাজদিখানে গভীর রাতে গৃহবধূ প্রেমিকার ঘরে পরকীয়া প্রেমিক পাকরাও, থানায় হস্তান্তর! সিরাজদিখানে বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টের ২য় সেমিফাইনাল অনুষ্ঠিত অতিরিক্ত টাকা না দিলে ফাইল ছুড়ে ফেলে দেন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুস সামাদ!

প্রদীপকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে জেলগেটে তদন্ত কমিটি

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৭০ বার

অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কক্সবাজার কারাগারে পৌঁছেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি।

আজ বুধবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে কমিটির সদস্যরা কারাগারে পৌঁছান।

কক্সবাজার কারাগারের তত্ত্বাবধায় মো. মোকাম্মেল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে চার দফায় ১৫ দিনের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার বিকেলে কারাগারে পাঠানো হয়।

সিনহা হত্যার ঘটনা তদন্তে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য আগামী ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় পেয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কমিটি। গত সোমবার রাতে এ তথ্য জানান তদন্ত কমিটির প্রধান মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

এর আগে সময় বাড়ানোর পরও রিমান্ডে থাকা সিনহা হত্যা মামলার আসামি টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশের সঙ্গে কথা বলতে পারেনি এই তদন্ত কমিটি।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজারের টেকনাফের কাছে বাহারছড়া চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। ওই ঘটনার পর তার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস গত ৫ অগাস্ট কক্সবাজারের হাকিম আদালতে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। সেখানে বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলিকে ১ নম্বর এবং টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে ২ নম্বর আসামি করা হয়।

মামলা হওয়ার পর ওসি প্রদীপসহ সাত পুলিশ সদস্য ৬ অগাস্ট আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এরপর প্রদীপকে সরকারি চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এই মামলায় গত ১৮ অগাস্ট প্রথম দফায় সাত দিন, ২৪ অগাস্ট দ্বিতীয় দফায় চার দিন, ২৮ অগাস্ট তৃতীয় দফায় তিন দিন এবং সর্বশেষ সোমবার চতুর্থ দফায় এক দিনের জন্য হেফাজতে নিয়ে প্রদীপকে জিজ্ঞাসাবাদ করে র‍্যাব।

এ জাতীয় আরো সংবাদ