1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
  4. rj.nazmul2500@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:২৭ অপরাহ্ন

আফগানিস্তানে বারাদারের নেতৃত্বে তালেবান সরকার

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৬৪ বার

মোল্লা আব্দুল গনি বারাদারের নেতৃত্বে আফগানিস্তানে নতুন তালেবান সরকার গঠন হতে যাচ্ছে। ইরানের সরকারের আদলে এ সরকারের সর্বোচ্চ নেতা হিসেবে থাকছেন তালেবানের আধ্যাত্মিক নেতা হিবাতুল্লাহ আকুন্দজাদা। তিনটি সূত্রের বরাত দিয়ে আফগানিস্তানের তুলো টিভি এ খবর জানায়। শুক্রবার জুমার নামাজের পর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসার কথা রয়েছে।

কাতারে তালেবানের রাজনৈতিক অফিসের দায়িত্ব পালন করেছিলেন এ মোল্লা বারাদার। তার সঙ্গে সরকারে যোগ দেবেন তালেবান প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা ওমরের ছেলে মোল্লা মোহাম্মদ ইয়াকুব। সূত্র জানায়, সরকারে থাকবেন শের মুহাম্মদ আব্বাস স্টানেকজাইও।

গত ১৫ আগস্ট কাবুলের ক্ষমতাগ্রহণের ১৮ দিন পর এ নতুন সরকার ঘোষণা করতে যাচ্ছে তালেবান। নতুন এ সরকারের সামনে নারীর অধিকারসহ নানা বিষয়ে আন্তর্জাতিক চাপ রয়েছে। এ ছাড়া দীর্ঘ যুদ্ধে আফগানিস্তানের অর্থনীতিও অনেকটাই বিপর্যস্ত। এ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করাটা নতুন তালেবান সরকারের সামনে এক বড় চ্যালেঞ্জ।

মোল্লা বারাদার ছিলেন তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা ওমরের অন্যতম সহযোগী। গত কয়েক বছর তিনি তালেবানের প্রতিনিধি হয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন। নতুন সরকারের দ্বিতীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে থাকছেন মোল্লা বারাদার। তবে কার্যত তিনি সরকারের প্রধান মুখ হয়েই থাকবেন।

নতুন তালেবান সরকারের সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে থাকছেন তালেবানের আধ্যাত্মিক নেতা হিবাতুল্লাহ আকুন্দজাদা। ইরানে যেভাবে আয়াতুল্লাহ খামেইনি ‘সর্বোচ্চ নেতা’র আসনে রয়েছে, আফগানিস্তানে আকুন্দজাদাও সেই আদলেই দায়িত্ব পালন করবেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার বার্তাসংস্থা এএফপি জানিয়েছিল, শুক্রবার তালেবানরা নতুন সরকার ঘোষণা করতে পারে। এ নিয়ে তালেবান কর্মকর্তা আহমাদুল্লাহ মুত্তাকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, কাবুলে প্রেসিডেন্ট ভবনে নতুন সরকার ঘোষণা উপলক্ষ্যে একটি অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে।

গত ১৫ আগস্ট কাবুলে ক্ষমতাগ্রহণ করে তালেবান। এর পর থেকেই নতুন তালেবান সরকার কেমন হবে, তা নিয়ে জল্পনার শেষ নেই। ইতোমধ্যে তালেবান ঘোষণা দিয়েছে যে, তাদের সরকার গণতান্ত্রিক হবে না; সরকার হবে শরিয়া ভিত্তিক। সেই সরকারের শাসনে নারীর অধিকার দেয়া হবে শরিয়ার ভিত্তিতে।

গত সোমবার মধ্যরাতে আনুষ্ঠানিকভাবে কাবুল ছাড়ে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন বাহিনীর কাবুল ত্যাগে আকাশে ফাঁকা গুলি ও আতশবাজি ফুটিয়ে উদযাপন করে তালেবান। তবে তালেবানের এক মুখপাত্র বার্তা দিয়েছেন, তারা সরকার কট্টর পন্থায় না চালিয়ে মধ্যপন্থা অবলম্বন করবেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ