1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও আমার কিছু কথা।। মোহাম্মদ রোমান হাওলাদার সিরাজদিখানে চাপাতির ভয় দেখিয়ে মোবাইল ছিনতাই, ছাত্রলীগ সভাপতির ভাইসহ গ্রেফতার-৪ সিরাজদিখানে শহীদ মিনারে ফুল দেয়াকে কেন্দ্র করে যুবলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে মারামারি,ছবি তোলায় দুই সাংবাদিকে পিটিয়ে আহত! সিরাজদিখান প্রেসক্লাবের দুই বছর মেয়াদে নির্বাচন সম্পন্ন সভাপতি মোক্তার সম্পাদক মাসুদ! অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বহু নাটকীয়তার পর বিরোধী দল হওয়ার সিদ্ধান্ত পিটিআইয়ের শান্তর বেতন ৯ লাখ, দেখে নিন কার কত নির্বাচনের পরেই সংসার ভাঙল মাহির কেউ যেন দেশকে পেছনে ঠেলে দিতে না পারে, সতর্ক থাকুন: প্রধানমন্ত্রী বাসচাপায় প্রাণ গেল মা‌-ছেলের

শিশুদের উজ্জ্বল ও সুন্দর ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৭ মার্চ, ২০২২
  • ১৬৪ বার

আগামী শতকে বাংলাদেশ কেমন হবে, সেই কর্মপরিকল্পনা করে দিয়েছেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এই পরিকল্পনা অনুযায়ী দেশ গড়ে তুলতে শিশুদেরকে তার সরকার যোগ্য করে গড়ে তুলছে।

আজকের শিশুদের আগামী দিনের কর্ণধার আখ্যা দিয়ে তিনি বলেছেন, শিশুদের উজ্জ্বল ও সুন্দর ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করার কথা মাথায় রেখে সরকার তার সব কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) বিকেলে জাতির পিতার জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে ‘টুঙ্গিপাড়া: হৃদয়ে পিতৃভূমি’ শীর্ষক আয়োজনে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। এই মর্যাদা ধরে রেখে আগামী দিনে আমরা বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলব। এটাই হচ্ছে আমাদের অঙ্গীকার।’

তিনি বলেন, ‘২১০০ সাল পর্যন্ত এই বাংলাদেশ কীভাবে উন্নত হবে সে পরিকল্পনা আমি প্রণয়ন করে, সেটা দিয়ে গেছি। কাজেই শিশুদের ভবিষ্যৎ যাতে উজ্জ্বল হয়, সুন্দর হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমাদের সব কর্মপরিকল্পনা।’

শিশুদের উদ্দেশে কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের ‘ছাড়পত্র’ কবিতার কয়েকটি চরণ আবৃত্তি করে শোনান প্রধানমন্ত্রী। ‘যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ ,প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল,

এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য ক’রে যাব আমি, নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।’

শিশুরা সুরক্ষিত থাকবে, সুন্দর জীবন পাবে- এমন অঙ্গীকার জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সময় স্কুল বন্ধ ছিল। আল্লাহর রহমতে এখন সব স্কুল খুলে গেছে। কাজেই এখন স্কুলে পড়াশোনার সুযোগ আবার এসেছে। তারা পড়াশোনা করবে। সেটাই আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যখন করোনা ছিল, তখন আমরা অনলাইনে ক্লাস নিয়েছি। শিশুরা যেন কোনোভাবে বঞ্চিত না হয়, সেদিকে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মিনি স্টেডিয়াম তৈরি করে দিচ্ছি। এখানে শিশুরা খেলাধুলা করতে পারবে, প্রতিযোগিতা করতে পারবে।’

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে বাঙালি জাতির মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার প্রসঙ্গ উঠে আসে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে।

তিনি বলেন, ‘আমি জানি না কী অপরাধ ছিল তার? আমার বাবা দেশের মানুষকে ভালোবেসেছিলেন, এ দেশটিকে সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে চেয়েছিলেন, যেন দেশের মানুষ ভবিষ্যতে সুন্দর জীবন পায় এবং উন্নত জীবন পায়। সে আকাঙ্ক্ষা নিয়ে তিনি তার জীবনকে উৎসর্গ করেছিলেন, বাংলার মানুষের জন্য।’

শিশুদের উদ্দেশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতির পিতা শিশুদের খুবই ভালোবাসতেন। আমার ছেলে জয়ের সৌভাগ্য হয়েছে, আমার বাবার কোলে চড়ে খেলা করতে। তিনি যখন বাচ্চাদের সঙ্গে খেলতেন, তখন মনে হতো তিনি নিজেই একটা শিশু। এটাই ছিল তার চরিত্রের সবচেয়ে বড় দিক, যেটা তার সরলতা।’

এ জাতীয় আরো সংবাদ