1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন

বিদ্রোহের অবসানের পর প্রথমবার জনসম্মুখে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৬ জুন, ২০২৩
  • ৫১ বার

ইউক্রেনে ১৬ মাসের বেশি সময় ধরে লড়াইরত সৈন্যদের সাথে সাক্ষাৎ করেছেন রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু। এর মধ্য দিয়ে রাশিয়ার ভাড়াটে বাহিনী ওয়াগনারের ২৪ ঘণ্টার আকস্মিক বিদ্রোহের অবসানের পর প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে দেখা গেছে তাকে। সোমবার রুশ রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা আরআইএর এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আরআইএর প্রতিবেদনে শোইগু যে দেশটির প্রতিরক্ষার দায়িত্বে থাকছেন, সেটি পরিষ্কার করা হয়েছে। তবে কোথায়, কখন রাশিয়ার ওয়েস্টার্ন মিলিটারি ডিস্ট্রিক্টের সৈন্যদের সাথে তিনি সাক্ষাৎ করেছেন সেই বিষয়ে বিস্তারিত কোনও তথ্য প্রকাশ করেনি আরআইএ।

সোমবার সকালের দিকে মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত এক ভিডিওতে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী শোইগুকে একটি বিমানে দেখা যায়। এ সময় তার এক সহকর্মীও ওই বিমানে ছিলেন।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের টেলিভিশন চ্যানেল জেডভেজদা বলেছে, শোইগুকে শারীরিকভাবে অক্ষত এবং শান্ত দেখা গেছে। তিনি ইউক্রেনে রাশিয়ার সম্মুখভাগের যুদ্ধ পরিস্থিতি সম্পর্কে গ্রুপ কমান্ডার কর্নেল জেনারেল ইয়েভগেনি নিকিফোরোভের একটি প্রতিবেদন শুনেছেন।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু ও সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান ভ্যালেরি গেরাসিমভ ওয়াগনারের সৈন্যদের জন্য যুদ্ধের পর্যাপ্ত অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহ করতে ব্যর্থ হওয়ায় কয়েক মাস ধরে তাদের ওপর ব্যাপক ক্ষুব্ধ ছিলেন এই বাহিনীর প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোজিন।

ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার জন্য শনিবার শোইগু ও ভ্যালেরির বিরুদ্ধে বিদ্রোহের ঘোষণা দিয়ে মস্কো অভিমুখে সৈন্যবহর পাঠিয়ে দেন তিনি। একই সঙ্গে রাশিয়ার এই দুই শীর্ষ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাকে তার হাতে তুলে দেওয়ার দাবি জানান।

পরে বেলারুশের মধ্যস্থতায় নাটকীয়ভাবে ওয়াগনারের বিদ্রোহের অবসান ঘটে। এরপর ওয়াগনার সৈন্যরা প্রিগোজিনের নির্দেশে ঘাঁটিতে ফিরে যান। আকস্মিক এই অস্থিতিশীল পরিস্থিতির পর থেকে গেরাসিমভকে এখন পর্যন্ত জনসম্মুখে দেখা যায়নি।

বিদ্রোহের অবসানে চুক্তি হলেও শীর্ষ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাদের পদে পরিবর্তন আনার বিষয়ে ক্রেমলিন কোনও মন্তব্য করেনি। ক্রেমলিন বলেছে, কর্মকর্তা পরিবর্তনে কেবল প্রেসিডেন্ট পুতিনের ক্ষমতা রয়েছে। তবে চুক্তিতে এই বিষয়ে কোনও কিছুই উল্লেখ করা হয়নি।

সূত্র: রয়টার্স, এএফপি।

এ জাতীয় আরো সংবাদ