1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ১২:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
সিরাজদিখানে দোকান বাকী না দেওয়ায় শারীরিক প্রতিবন্ধিকে মারধর ।। সংবাদ সংগ্রহ করায় সাংবাদিকের উপর চড়াও! শাহজাদপুরে চিরদিনের জন্য রেখে এলাম আমাদের কলিজার টুকরা ফাহাদ আব্বুকে ‘পুতিন কবে আমাদের রেলভ্রমণ করে গেলেন কেউ জানলাম না’ ভূট্টা চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকদের!  কচুর লতি বিক্রি করতে বাজারে বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক! পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করবে ভারত এবার আসছে পানযোগ্য স্যানিটাইজার বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি: নুরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অভিযোগ নুসরাতের রইল না কেউ, সকালে মারা গেলেন মা-বোন বিকেলে বাবা ঘর উপহার পেয়ে আনন্দের বন্যা ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের সদস্যদের

রোহিঙ্গাদের এনআইডি: ৪ দিনের রিমান্ডে ইসি কর্মী

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৫২৯ বার

জালিয়াতির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ভোটার করা ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাইয়ে দেওয়ার মামলায় চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহায়ক নাজিম উদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চারদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মেহনাজ রহমান এ আদেশ দেন।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রসিকিউশন) মো. কামরুজ্জামান বলেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ‘গ্রেফতারকৃত নাজিম উদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিস থেকে নাজিমকে গ্রেফতার করে মামলার তদন্তকারী সংস্থা কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। তদন্তকারী কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়া আজ তাকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন।

গত ১৮ আগস্ট লাকী নামের এক রোহিঙ্গা নারী চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে স্মার্ট কার্ড তুলতে গেলে তার হাতে পুরনো এনআইডিতে ১৭ ডিজিটের নম্বর দেখে কর্মকর্তাদের সন্দেহ হয়। নির্বাচন কর্মকর্তাদের জেরার মুখে সে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে এনআইডি তৈরির কথা স্বীকার করেন। এরপর রোহিঙ্গাদের ভোটার করা ও এনআইডি তৈরি করার সঙ্গে সম্পৃক্তদের ধরতে অভিযান শুরু হয়।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর ডবলমুরিং থানা নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহায়ক জয়নাল আবেদিন, সহযোগী বিজয় দাশ ও সীমা দাশ ওরফে সুমাইয়াকে নির্বাচন কমিশনের লাইসেন্সকৃত একটি ল্যাপটপসহ আটক করা হয়। এঘটনায় ডবলমুরিং থানা নির্বাচন কর্মকর্তা পল্লবী চাকমা বাদী হয়ে কোতোয়ালী থানায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় নির্বাচন কমিশনের এনআইডি উইংয়ের কর্মী শাহনুর মিয়া, অস্থায়ী কর্মী মোস্তফা ফারুক, মো. শাহীন, মো. জাহিদ হাসান এবং পাভেল বড়ুয়া, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের উচ্চমান সহকারী মো. আবুল খায়ের ভূঁইয়া ও মীরসরাই উপজেলা নির্বাচন অফিস সহকারী আনোয়ার হোসেন ও সর্বশেষ নাজিমসহ মোট ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়। সূত্র-বাসস।

এ জাতীয় আরো সংবাদ