1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর ২০২২, ০৬:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সিরাজদিখানে গভীর রাতে গৃহবধূ প্রেমিকার ঘরে পরকীয়া প্রেমিক পাকরাও, থানায় হস্তান্তর! সিরাজদিখানে বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টের ২য় সেমিফাইনাল অনুষ্ঠিত অতিরিক্ত টাকা না দিলে ফাইল ছুড়ে ফেলে দেন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুস সামাদ! যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুব-সমাবেশে সিরাজদিখানের দুই হাজার যুবলীগ নেতাকর্মীর যোগদান সিরাজদিখানে মজুদ কৃত আলু নিয়ে বিপাকে কৃষক! সিরাজদিখান সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে সক্রিয় প্রভাবশালী জালিয়াতি চক্রের দৌরাত্ম! সিরাজদিখানে গ্রীল কেটে স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ ১০ লাখ টাকার মালামাল চুরি! বিড়াল হত্যার বিচার চেয়ে তরুণী থানায়। অভিযোগ শুনে পুলিশের হাসিঠাট্টা মহাসংকটের শঙ্কা, খাদ্য নিরাপত্তায় জোর প্রধানমন্ত্রীর ফোন নম্বর ছাড়াই যেভাবে ব্যবহার করবেন হোয়াটসঅ্যাপ

ক্যাসিনো মামলায় শীর্ষ আসামি দুই ভাই গ্রেপ্তার

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৩৫৫ বার

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরুর পর আলোচিত দুই ভাই গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এনামুল হক ও সাধারণ সম্পাদক রূপন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

রোববার রাতে রাজধানীর সূত্রাপুর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে সিআইডির পাঠানো এক মুঠোফোন বার্তায় জানানো হয়েছে, এ বিষয়ে সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বলছে, এনু ও রুপন মতিঝিলে ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে ক্যাসিনোকাণ্ডের অন্যতম হোতা। স্থানীয়ভাবেও তাদের পরিবার ‘জুয়াড়ি পরিবার’ হিসেবে চিহ্নিত।

এনামুল হক ওরফে এনু ভূঁইয়া গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও রুপন একই ইউনিটের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, তারা দুই ভাইসহ পুরো পরিবারের অন্তত ৯ জন সংগঠনের বিভিন্ন পদে রয়েছে। যদিও রাজনীতিতে সক্রিয় নয় তারা। দলীয় পদ বহন করে জুয়াসহ বিভিন্ন অপকর্ম করেছে তারা।

গত ২৪ সেপ্টেম্বর অভিযানের সময় র‌্যাব এই দুই ভাই ও তাদের সহযোগীদের বাসার পাঁচটি ভল্ট ভেঙে নগদ পাঁচ কোটি চার লাখ ৯০ হাজার টাকা, ৭২০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, বিভিন্ন ধরনের ছয়টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে। পরে পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় তাদের ১৫টি বাড়ির সন্ধান মিলেছে। এ ছাড়াও নামে-বেনামে তাদের অনেক জায়গা রয়েছে। বিভিন্ন ব্যাংকে গচ্ছিত অর্থ ছাড়াও বিভিন্ন বাসায় তাদের টাকা ও স্বর্ণের আরও গোপন ভল্ট থাকতে থাকতে পারে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ