1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১০:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও আমার কিছু কথা।। মোহাম্মদ রোমান হাওলাদার সিরাজদিখানে চাপাতির ভয় দেখিয়ে মোবাইল ছিনতাই, ছাত্রলীগ সভাপতির ভাইসহ গ্রেফতার-৪ সিরাজদিখানে শহীদ মিনারে ফুল দেয়াকে কেন্দ্র করে যুবলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে মারামারি,ছবি তোলায় দুই সাংবাদিকে পিটিয়ে আহত! সিরাজদিখান প্রেসক্লাবের দুই বছর মেয়াদে নির্বাচন সম্পন্ন সভাপতি মোক্তার সম্পাদক মাসুদ! অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বহু নাটকীয়তার পর বিরোধী দল হওয়ার সিদ্ধান্ত পিটিআইয়ের শান্তর বেতন ৯ লাখ, দেখে নিন কার কত নির্বাচনের পরেই সংসার ভাঙল মাহির কেউ যেন দেশকে পেছনে ঠেলে দিতে না পারে, সতর্ক থাকুন: প্রধানমন্ত্রী বাসচাপায় প্রাণ গেল মা‌-ছেলের

সৌদি যুবরাজের নির্দেশে গ্রেফতার ২০ প্রিন্স

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৮ মার্চ, ২০২০
  • ৬১১ বার

এর আগে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার সৌদি রাজপরিবারের তিন প্রিন্সকে গ্রেফতার করা হয়। নিরাপত্তা রক্ষীরা মুখোশ ও কালো পোশাক পড়ে রাজপরিবারের এসব সদস্যদের বাড়িতে গিয়ে তল্লাশি চালায়।

২০ জন প্রিন্সকে গ্রেফতার করলেও মিডল ইস্ট আই চার জন প্রিন্সের নাম নিশ্চিত করেছে। তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গ্রেফতার হওয়া এসব প্রিন্সদের মধ্যে প্রিন্স আহমেদ, তার ছেলে প্রিন্স নায়েফ বিন আহমেদ আব্দুলাজিজ, সাবেক ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফ ও তার সৎ ভাই নাওয়াফ বিন নায়েফ।

এদের মধ্যে অন্তত দুইজন দেশটির সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের অন্যতম।

গ্রেফতারের পর রাজপরিবারের সকল প্রিন্সকে যুবরাজ টুইটারে তার প্রতি আনুগত্য প্রকাশের নির্দেশ দেন। ইতোমধ্যে ৩ জন প্রিন্স সেটি পালন করেছেন।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক খবরে বলা হয়েছে, যুবরাজ সালমানের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানের অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুবরাজ সালমানের নির্দেশে ২০১৭ সালে সৌদি রাজপরিবারের অনেক সদস্য, মন্ত্রী এবং ব্যবসায়ীকে রিয়াদের দেশটির রিৎস-কার্লটন হোটেলে আটকে রাখা হয়।

২০১৬ সালে যুবরাজ ঘোষণার পর থেকে রাজতন্ত্রের দেশটিতে মোহাম্মদ বিন সালমানকে অঘোষিত শাসক বলে মনে করা হয়। যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সেসময় যখন চরম রক্ষণশীল সৌদি আরবে অর্থনৈতিক ও সামাজিক সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছিলেন তখন সেটি বিশ্বব্যাপী প্রশংসা পেয়েছিল।

তবে ২০১৮ সাল নাগাদ ইস্তানবুলে সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ঘটনাসহ আরো বেশ কিছু কেলেঙ্কারির ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন যুবরাজ।

এ জাতীয় আরো সংবাদ