1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১১:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারতে সাবেক ছাত্রলীগ ফোরাম! সিরাজদিখানে হামলার ঘটনায় মামলা, সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে প্রান নাশের হুমকি! মুন্সীগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি বহাল সিরাজদিখানে খালেদা জিয়া ও আব্দুল হাইয়ের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সিরাজদিখানে জুয়া খেলতে বাঁধা দেয়ায় বৃদ্ধের মাথায় কোপ ও মারধর! উন্নত চিকিৎসায় ঢাকায় প্রেরণ। ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতির প্রথম মৃত্যু বার্ষিকীর স্মরণসভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সিরাজদিখানে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সজিব ওয়াজিদ জয়ের জন্মদিন পালন সিরাজদিখানে স্বর্ণের দোকানে চুরির অভিযোগ! সাশ্রয়ী হওয়ার পাশাপাশি খাদ্য উৎপাদনে জোর প্রধানমন্ত্রীর সিরাজদিখানে জাল দলিল করে ভাইয়ের সম্পত্তি বোনের বিক্রি, ফেরৎ চাওয়ায় মারধর!

পূর্বাচলে মার্চে বাণিজ্যমেলা, পাচ্ছে স্থায়ী কেন্দ্র

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ২০৪ বার

এতো বছর ধরে অস্থায়ী কেন্দ্রে আয়োজন করা হলেও ২০২১ সালের বাণিজ্যমেলা হবে পূর্বাচলে স্থায়ী কেন্দ্রে। করোনার কারণে দেরি হলেও এ মেলা শুরু হবে ১৭ মার্চ। বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার নামে এই স্থায়ী কেন্দ্রটি ডিসেম্বরের ৩১ তারিখে বুঝে পাবে রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)।

এর আগে ২০২১ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা পূর্বাচলে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে এসে এ সিদ্ধান্তেরই প্রতিফলন হতে যাচ্ছে।

ইপিবির মহাপরিচালক মাহবুবুর রহমান বলেছেন, পূর্বাচলে ২০ একর জমির ওপর বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার নামে স্থায়ী বাণিজ্যমেলা কেন্দ্রটির নির্মাণ কাজ শেষে হয়েছে। চলতি ডিসেম্বরের ৩১ তারিখে এটি আমরা বুঝে পাবো। এটি নির্মাণ করেছে একটি চীনা নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান।

এদিকে ইপিবি সূত্রে জানা গেছে, পূর্বাচলে স্থায়ীভাবে বাণিজ্যমেলা করার জন্য সরকারের কাছে ৩৮ একর জমি চেয়ে ২৬ একর জমি পেয়েছিল ইপিবি। আরো ১২ একর জমি প্রক্রিয়াধীন। ২০ একর জমির ওপর এক্সিবিশন সেন্টার নির্মাণ হয়েছে। ৬ একর জমিতে হবে ওয়্যার হাউজ, পাওয়ার প্ল্যান্ট, স্থায়ী ফুড সেন্টার ও অংশগ্রহণকারীদের জন্য আবাসিক ব্যবস্থাসহ প্রশাসনিক ভবন। এগুলো এখনো নির্মাণাধীন। আর এই বিশাল কর্মযজ্ঞের ঘোষণাটি এসেছিল ২০১৯ সালের আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার সমাপ্তির দিনেই।

সে বছর ৩ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় সমাপনী অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছিলেন, ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা স্থায়ীভাবে পূর্বাচলে নিয়ে যাওয়ার জন্য সেখানে বাণিজ্যমেলার নিজস্ব কেন্দ্র করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী আমাদের বলেছেন, ২০২১ সালের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা হবে পূর্বাচলের নিজস্ব জায়গায়।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো সূত্রে জানা গেছে, পূর্বাচলে প্রায় ৭৯৬ কোটি টাকা ব্যয়ে এ কেন্দ্র নির্মাণের কাজ শুরু হয়। পরে প্রকল্পের মেয়াদ বাড়লে ব্যয়ও বাড়ানো হয় ১৭০ কোটি টাকা। ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে এই উদ্যোগটি নিয়েছিল আওয়ামী লীগ সরকার।

এ জাতীয় আরো সংবাদ