1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সিরাজদিখানে অযত্ন অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে ভ্রাম্যমান লাইব্রেরী, দেখার কেউ নেউ! জনস্বার্থে দেওয়া স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে সাংবাদিকের উপর হামলা! তৃণমূল সাংবাদিক মহল ক্ষুব্ধ। সিরাজদিখানে শেখ সাহেব খ্যাত রশিদ মাস্টারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্বরণ সভা! সিরাজদিখানে লাউ গাছ কেটে কৃষকের ক্ষতি সাধনের অভিযোগ! শেখ সাহেব খ্যাত রশিদ মাস্টারের ১৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী আজ বিশ্বকাপ ফাইনাল ঘিরে ঢাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা জোরদার! ফাইনালের আগে মেসিকে ছেলের আবেগঘন চিঠি! বিশ্বকাপঃ আজ সবকিছুই লিওনেল মেসি ও আরজেন্টিনার জন্য! ‘সাব -রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা অবমাননা’ শিরোনামে স্থানীয় দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা সিরাজদিখানে রাজনৈতিক কোন্দলে বিজয় দিবসের শ্রদ্ধা নিবেদনে অনিহা ছাত্রলীগের!

সিরাজদিখানে নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

মোহাম্মদ রোমান হাওলাদার
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৬১ বার

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নাম কেন্দ্রে না পাঠানোর কারণে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে এলাকাবাসী ও মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। আজ রবিবার (২১ নভেম্বর) বিকাল ৫ টার দিকে উপজেলার ইছাপুরা চৌরাস্তা থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পর্যন্ত দাঁড়িয়ে নারী-পুরুষসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রায় ৫ শতাধিক মানুষ এই মানব বন্ধনে অংশ গ্রহণ করেন। ইছাপুরা ইউনিয়নের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি সুখন চৌধুরী, জৈনসার ইউনিয়নের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আবুল খায়ের বেপারী এবং কোলা ইউনিয়নের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় উপজেলা আওয়ামীলীগর সভাপতি হাজী মহিউদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তাদের বক্তব্যে বলেন,

আমরা যারা আওয়ামীলীগের নিবেদিত প্রাণ, পুর্ব পুরুষ থেকে আজো আওয়ামীলীগের সুখে-দুঃখে রয়েছি, বিভিন্ন ঘটনায় হামলা মামলার স্বীকার হয়েছি, জেল খেটেছি, শারীরিক নির্যাতনের স্বীকার হয়েছি তারা আজ অবহেলিত। আমাদের দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় কাগজ-পত্র জমা দিয়েছি, তা তিনি কেন্দ্রে পাঠাননি। তার স্ত্রী, ছেলে এবং মেয়ের জামাইয়ের নাম কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন। শুধু তাই নয় বিভিন্ন ইউনিয়নের নব্য আওয়ামীলীগ সাবেক বিএনপি নেতাদের কাগজ-পত্র কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন। আমরা তাকে এই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে ধিক্কার জানাই। এ উপজেলা থেকে ৭০ জন নৌকার মনোনয়ন চেয়ে কাগজ-পত্র জমা দিয়েছেন, সেখান থেকে ৪২ জনের নাম কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও মনোনয়ন বোর্ডের নিকট আমাদের আকুল আবেদন এই উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়নের ত্যাগী নেতাদের নাম বাদ দেয়ায় বিষয়টি আপনারা দেখবেন।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ইছাপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম বাবু চৌধুরী, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক রশিদ শেখ, সদস্য শাজাহান দেওয়ান, কোলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ শাজাহান বেপারী, ইছাপুরা ইউনিয়ন যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মিসর তালুকদার, ছাত্রলীগ সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম রানা, সাধারণ সম্পাদক ফাহিম তানজিল, কে.বি ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মাসুম চৌধুরী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ১৮ ও ২০ নবেম্বর একাধিক প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ড বরাবর উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এদিকে বালুরচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলেক চান মুন্সী ও মোহাম্মদ আফজাল হোসাইনসহ ওই এলাকার বেশ কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা তাদের ব্যক্তিতগত ফেইজবুক পোস্টে “বালুচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ আবুবকর সিদ্দিক এবারও বালুচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতিক নৌকা পাওয়াতে, বালুচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠন ও সর্বস্তরের নেতা কর্মীদের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন” লিখে বালুচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ আবু বকর সিদ্দিককে পুনরায় নৌকার মনোনয়ন দেওয়ার শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে!

নিয়ম অনুযায়ী যাচাই বাছাই শেষে আগামী ৭ ডিসেম্বর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে প্রতীক বরাদ্দের কথা থাকলেও বালুচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্ধারিত সময়ের আগে কি করে নৌকার মনোনয়ন পেলেন? এমন প্রশ্ন তুলে দলীয় নেতাকর্মীরা ওই পোষ্টে মন্তব্য করেছেন। তবে বালুচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলেক চান মুন্সির কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, একজনের কথা শুনে আবেগে লিখে ফেলেছিলাম। পরে ডিলিট করে দিয়েছি। বালুচরের চেয়ারম্যান এ বিষয়ে অবগত আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, না ভাই সে জানে না। এ ব্যপারে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন,

যে প্রার্থীরা আমাদের কাছে সিভি জমা দিয়েছে তাদের সিভি জেলা কমিটির কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। যেহেতু এক একটি ইউনিয়নে ৫-৭ জন বা তার বেশী প্রার্থী থাকায় জেলা আওয়ামীলীগ প্রতিটি ইউনিয়ন থেকে ৩-৪ জন করে প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠিয়েছে। আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগ থেকে ৭০ জন প্রার্থীর সিভি জেলা কমিটির কাছে পাঠিয়েছি।

এ জাতীয় আরো সংবাদ