1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারতে সিরাজদিখান চেয়ারম্যান ফোরাম! মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে হেভিওয়েট প্রার্থী মোঃ মাসুদ লস্কর! নিভৃতচারী শেখ রেহানা সিরাজদিখানে তারাবী নামাজে ভুল ধরাকে কেন্দ্র করে ঈমাম তাড়ানোর পায়তারা! সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদে শক্ত প্রার্থী এডভোকেট কে এম হোসেন আলী হাসান প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে উন্নয়নের মহাকাব্য রচনার আহ্বান জিটুর সিরাজদিখানে শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ইছাপুরায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও আলোচনা সভা! সিরাজদিখানে বিএনপির বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৫ পরিবারকে ঘর উপহার

বিমান চলাচল নিষিদ্ধ করলে তা হবে রাশিয়ার বিপক্ষে যুদ্ধ ঘোষণা – পুতিনের কঠিন হুশিয়ারি

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৫ মার্চ, ২০২২
  • ৮৩ বার

ইউক্রেনের আকাশে কোনো দেশ ‘নো-ফ্লাই জোন’ ঘোষণা করলে সেটাকে চলমান যুদ্ধে অংশগ্রহণ হিসেবে মনে করবেন বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

রুশ টিভিতে বক্তব্য রাখার সময় রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, ‘কোনো দেশ এই লক্ষ্যে পদক্ষেপ নিলে সেটা এই সশস্ত্র সংঘাতে যোগদান বলে বিবেচনা করা হবে।’ শনিবার (৫ মার্চ) বিবিসির এক অনলাইন প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবিসির অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়ায় সামরিক আইন জারির বিষয়ে গুজব উঠলেও ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, রাশিয়ায় সামরিক আইন জারি করার কোনো পরিকল্পনা তার নেই।

এর আগে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ‘নো-ফ্লাই জোন’ ঘোষণা করার জন্য ন্যাটোর প্রতি আহ্বান জানান। ন্যাটোর মহাসচিব বলেন,  ইউক্রেনের আকাশসীমার ওপর দিয়ে ন্যাটোর বিমান চালানো উচিত নয় এমনকি ইউক্রেনের ভূখণ্ডেও ন্যাটো সেনারা যাবে না।

ন্যাটো জোটের এমন পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ হয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি ন্যাটোর শীর্ষ সম্মেলনকে ‘দুর্বল’ ও ‘বিভ্রান্ত’ সম্মেলন আখ্যায়িত করে বলেন, ন্যাটো ভেবেচিন্তে ইউক্রেইনের আকাশ ‘নো-ফ্লাই জোন’  ঘোষণা না করার সিদ্ধান্ত দিল। আজ থেকে যেসব মানুষ মরবে, তারা আপনাদের অর্থাৎ ন্যাটোর কারণে মরবে।

প্রসঙ্গত, ইউক্রেনে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে সামরিক অভিযান শুরু করে রুশ সেনারা। রাশিয়া মনে করে, তাদের সার্বভৌম রক্ষা করতে ইউক্রেনকে ন্যাটো জোট মুক্ত রাখতে হবে। আর তা না হলে রাশিয়াকে চাপে রাখতে আমেরিকা ও পশ্চিমা শক্তি রাশিয়া সীমান্তে সর্বশক্তি নিয়োগ করবে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ