1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারতে সাবেক ছাত্রলীগ ফোরাম! সিরাজদিখানে হামলার ঘটনায় মামলা, সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে প্রান নাশের হুমকি! মুন্সীগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি বহাল সিরাজদিখানে খালেদা জিয়া ও আব্দুল হাইয়ের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সিরাজদিখানে জুয়া খেলতে বাঁধা দেয়ায় বৃদ্ধের মাথায় কোপ ও মারধর! উন্নত চিকিৎসায় ঢাকায় প্রেরণ। ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতির প্রথম মৃত্যু বার্ষিকীর স্মরণসভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সিরাজদিখানে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সজিব ওয়াজিদ জয়ের জন্মদিন পালন সিরাজদিখানে স্বর্ণের দোকানে চুরির অভিযোগ! সাশ্রয়ী হওয়ার পাশাপাশি খাদ্য উৎপাদনে জোর প্রধানমন্ত্রীর সিরাজদিখানে জাল দলিল করে ভাইয়ের সম্পত্তি বোনের বিক্রি, ফেরৎ চাওয়ায় মারধর!

উহানে ২৪ ঘণ্টাই পোড়ানো হচ্ছে লাশ

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৫৩৭ বার

করোনাভাইরাসে বিধ্বস্ত চীন। দেশটিতে একের পর এক প্রাণ যেমন ঝরছে, তেমনই শ্মশানগুলোতে বেড়েছে ব্যস্ততা। যে উহান প্রদেশ থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে সেখানের শ্মশানগুলোতে ২৪ ঘণ্টাই পোড়ানো হচ্ছে লাশ, ব্যস্ততা বেড়েছে সেখানকার কর্মীদেরও।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, চীনে করোনাভাইরাসে মুত্যুতে শ্মশানের কর্মীদের ব্যস্ততা বহু গুণ বেড়েছে। তারা হাসপাতাল ও ব্যক্তিগত বাসা থেকে লাশ এনে শেষকৃত্যের আয়োজন করছেন। মৃতদেহের অতিরিক্ত চাপের কারণে উহানের শ্মশানগুলো ২৪ ঘণ্টাই লাশ পোড়ানো হচ্ছে।

ইয়ান নামে এক শ্মশান কর্মকর্তা জানান, প্রতিদিন কমপক্ষে ১০০ মরদেহ সেখানে আসছে। এসব মরদেহ মূলত উহানের প্রধান তিন হাসপাতাল থেকে আনা হচ্ছে। ছোট ছোট হাসপাতাল ছাড়াও ব্যক্তিগত বাড়ি থেকেও লাশ আসছে।

ইয়ান বলেন, ‘‘গত ২৮ জানুয়ারি থেকে আমাদের ৯০ শতাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী ২৪ ঘণ্টা কাজ করছেন। আমরা বাড়ি যেতে পারছি না। আমাদের আরও জনবল দরকার।’

সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে ইয়ান ও তার সহকর্মীদের নিরাপত্তা সরঞ্জাম সরবরাহ করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসে মৃতদের শেষকৃত্যে স্বজনদের থাকতে দেওয়া হচ্ছে না। পাশাপাশি সংক্রমণ ঠেকাতে অনেকের মরদেহ তাদের স্বজনদের দেখতেও দেওয়া হচ্ছে না।

করোনাভাইরাসে চীনের মূল ভূখণ্ড ও এর বাইরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬৩ জনে। গতকাল বুধবার চীনে নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে আরও ২ হাজার ৯৮৭ জন।

চীনের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যমের বরাতে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সসহ একাধিক আন্তজার্তিক গণমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, বুধবার মৃত ৭০ জনের সবাই হুবেই প্রদেশের। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে ২৭ হাজার ৩৭৮ জন আক্রান্ত হয়েছে। চীনসহ সারা বিশ্বে এ সংখ্যা ২৭ হাজার ৬০২ জন।

বিশ্বের ২৮টি দেশ ও অঞ্চলে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। চীনের মূল ভূ-খণ্ডের বাইরে হংকং ও ফিলিপাইনে আরও দুজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ