1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ১২:৩১ অপরাহ্ন

ডোনাল্ডের সামনে অন্যরকম বাস্তবতা

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৪০ বার

ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের কোন দিক দিয়ে বিশ্বকাপ জয়ের ছক্কা মেরেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি– এ নিয়ে বেশ আলোচনা হলো। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে উপস্থিত থাকা বাংলাদেশ দলের ভিডিও অ্যানালিস্টও যোগ দিলেন তাতে। তিনি জানান, এমসিএ প্রান্ত থেকে বল করা হয়েছিল, ছক্কাও হয়েছে সেদিক দিয়ে।

গতকাল বাংলাদেশ দলের নেট থেকে বলগুলো উড়ে উড়ে বাউন্ডারির ওপারে আছড়ে পড়ছিল এমসিএর ঠিক বিপরীত দিকে। অর্থাৎ প্রেস বক্সের দিকে গেছে বেশির ভাগ বল। কারণ সেন্টার উইকেটের নেটের খোলা অংশ ছিল সেদিকে। এই মাঠে দু’দিন আগেই ছক্কা বৃষ্টি হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংল্যান্ডের ম্যাচে। যেটা দেখার পর বাংলাদেশ দলকেও গেম প্ল্যানে কিছুটা পরিবর্তন আনতে হচ্ছে।

ব্যাটিংস্বর্গে একাদশের লাইনআপ কেমন হবে– এ নিয়ে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের সঙ্গে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন অনেকক্ষণ কথা বলেন। একাদশ নির্বাচনের পরিকল্পনা অনেকটা এগিয়ে নিয়েছেন তারা কিছু যদি কিন্তু রেখে। তবে এ ম্যাচে ড্রেসিংরুমে থেকে একজনকে খেলতে হবে পরোক্ষে। পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ডকে অলিখিত দ্বাদশ খেলোয়াড়ের ভূমিকা নিতে হবে। কারণ তাঁর দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেই তো সাকিবদের খেলা কাল।

বাংলাদেশ এবার বিশ্বকাপ দল নির্বাচনে ভুল করে ফেলেনি তো? বিশ্বকাপের মাঝপথে এই প্রশ্ন ওঠার কারণ আছে। ভারতের ব্যাটিংস্বর্গে পেস বোলাররা তেমন কিছু করতে পারছেন না। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তানের পেসাররা লড়াই করার মানসিকতা দেখাতে পারলেও মুখ থুবড়ে পড়তে দেখা গেছে বাংলাদেশের ফাস্ট বোলারদের। মুস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ বা হাসান মাহমুদরা ব্রেকথ্রু দিতে পারছেন না। এর পরও তিন পেসার নিয়ে খেলতে হচ্ছে টাইগারদের।

মুম্বাইয়েও তিন পেসার রেখে একাদশ সাজালে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কারণ মাঠ আকারে ছোট এবং উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য বেশি ভালো। যদিও পেস বোলিং কোচ সমকালকে দু’দিন আগে বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ম্যাচ দেখে বোলিং লাইনআপ নিয়ে অধিনায়ক সাকিবের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। সাকিব নিজে খেলতে পারলে বোলিং লাইনআপে কিছুটা পরিবর্তন আনা সম্ভব হবে। বিশেষ করে ব্যাটিং লাইনআপ বড় করতে শেখ মেহেদীকেও খেলাতে পারে। সাকিব বা তাসকিন কাউকেই এ ম্যাচ খেলতে জোরাজুরি করা হবে না। সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে দু’জনের ওপর ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানান টিম ম্যানেজমেন্টের একজন সদস্য।

কাল প্রোটিয়াদের বিপক্ষে কারা খেলছেন, সেটা মুখ্য নয়। ব্যাটিং না বোলিং কোনটা আগে করা হবে– এ বিষয় নিয়ে চর্চা বেশি। বাংলাদেশ দলের বেশির ভাগ টস জিতলে আগে ব্যাটিং করে ফেলার পক্ষে। ধর্মশালার প্রথম দুই ম্যাচে প্রথমে ফিল্ডিং করলেও পরের দুই ম্যাচে ব্যাটিং নিয়েছিল দল। মূলত সম্মানজনক একটা রান তুলে প্রতিপক্ষকে চাপে রাখার পরিকল্পনা। এ ছাড়া নিউজিল্যান্ড বা ভারতকে রানের পাহাড় গড়ে তোলার সুযোগ না দেওয়ার বিষয়টিও ছিল।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও আগে ব্যাটিং করতে চাওয়া একই কারণে। আগে-পরে ব্যাটিং বা বোলিং করার আরও অনেক সমীকরণ রয়েছে। সেগুলো নিজেদের পক্ষে কাজে লাগাতে কিছু কৌশল নেওয়া হয়। হাথুরুসিংহের কোচিং প্যানেল কাল অন্তত বিচক্ষণতার পরিচয় দেবে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে। এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন ডোনাল্ড।

এ জাতীয় আরো সংবাদ