1. successrony@gmail.com : Mehedi Hasan Rony :
  2. arif_rashid@live.com : Arif Rashid : Arif Rashid
  3. meherunnesa3285@gmail.com : Meherun Nesa : Meherun Nesa
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সিরাজদিখানে দোকান বাকী না দেওয়ায় শারীরিক প্রতিবন্ধিকে মারধর ।। সংবাদ সংগ্রহ করায় সাংবাদিকের উপর চড়াও! শাহজাদপুরে চিরদিনের জন্য রেখে এলাম আমাদের কলিজার টুকরা ফাহাদ আব্বুকে ‘পুতিন কবে আমাদের রেলভ্রমণ করে গেলেন কেউ জানলাম না’ ভূট্টা চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকদের!  কচুর লতি বিক্রি করতে বাজারে বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক! পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করবে ভারত এবার আসছে পানযোগ্য স্যানিটাইজার বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি: নুরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অভিযোগ নুসরাতের রইল না কেউ, সকালে মারা গেলেন মা-বোন বিকেলে বাবা ঘর উপহার পেয়ে আনন্দের বন্যা ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের সদস্যদের

টেঁটা-বল্লমের সংঘর্ষ থামেনি তিন দিনেও আধিপত্য বিস্তার

দিনলিপি নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৫৭ বার

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে তিন দিন ধরে থেমে থেমে চলছে টেঁটা-বল্লমের সংঘর্ষ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার আকবরনগরে আবারও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে এক পক্ষের সমর্থকদের আটটি ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় আকবরনগর গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বালুচর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আফজাল হোসেন ও বক্তাবলী এলাকার সামেদ আলীদের সঙ্গে আকবরনগর গ্রামের হাসান আলীদের দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলে আসছিল। গতকাল দুপুরে আফজাল হোসেনের এক সমর্থককে মারধর করে হাসান আলীর লোকজন। পরে আফজাল ও সামেদ আলীর লোকজন হাসান আলীর সমর্থকদের বাড়িঘর ঘেরাও করে হামলা চালায়। সে সময় সাত-আটটি বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাট করে তারা। পরে পুলিশ খবর পেলে ঘটনাস্থলে যায়।

এর আগে গত সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। এতে পাঁচজন টেঁটাবিদ্ধসহ অন্তত ১৭ জন আহত হয়। এ ছাড়া উভয় পক্ষের ১২টি বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

সিরাজদিখান থানার ওসি মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বলেন, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। কয়েক দিন আগের ঘটনায় ফতুল্লা থানা মামলা হয়েছে। বক্তাবলীর লোকজন আকবরনগর না এলে কোনো ঝগড়া হওয়ার আশঙ্কা নেই। আজকে সেখানে গিয়েছিলাম। বক্তাবলী ইউপি চেয়ারম্যান শওকত এবং ফতুল্লা থানার ওসি ঝামেলা কমাতে তাঁর এলাকার দায়িত্ব নিয়েছেন।

#আজকের পত্রিকা

এ জাতীয় আরো সংবাদ